আমার জীবনসদা পাপে রত
নাহিক পুণ্যের লেশ ।
পরেরে উদ্বেগদিয়াছি যে কত
দিয়াছি জীবেরে ক্লেশ ॥
 
নিজ সুখ লাগি'পাপে নাহি ডরি
দয়াহীন স্বার্থপর ।
পর সুখে দুঃখীসদা মিথ্যাভাষী
পরদুঃখ সুখকর ॥
 
অশেষ কামনাহৃদি মাঝে মোর
ক্রোধী দম্ভপরায়ণ ।
মদমত্ত সদাবিষয়ে মোহিত
হিংসা-গর্ব্ব বিভূষণ ॥
 
নিদ্রালস্য-হতসুকার্য্যে বিরত
অকার্য্যে উদ্যোগী আমি ।
প্রতিষ্ঠা লাগিয়াশাঠ্য আচরণ
লোভহত সদা কামী ॥
 
এহেন দুর্জ্জনসজ্জন-বর্জ্জিত
অপরাধী নিরন্তর ।
শুভকার্য্যশুন্যসদানর্থমনা
নানা দুঃখে জর জর ॥
 
বার্দ্ধক্যে এখনউপায়-বিহীন
তা'তে দীন অকিঞ্চন ।
ভকতিবিনোদপ্রভুর চরণে
করে দুঃখ নিবেদন ॥
 

 


 

← গ্রন্থাগারে ফিরে

শ্রীল ভক্তিনির্ম্মল আচার্য্য মহারাজ:
ডাউনলোড (২ Mb)

 


 

সূচীপত্র:
আমার জীবন সদা
অক্রোধ পরমানন্দ
আত্মনিবেদন, তুয়া পদে
বড় সুখের খবর গাই
ভয়ভঞ্জন-জয়শংসন
বজহুঁরে মন
ভজ রে ভজ রে আমার
ভুলিয়া তোমারে
বিমল হেমজিনি
দশাবতারস্তোত্রম্
ধন মোর নিত্যানন্দ
দুর্লভ মানব জন্ম
এইবার করুণা কর
এ ঘোর সংসারে
এমন দুর্ম্মতি
গায় গোরা মধুর স্বরে
গোপীনাথ মম নিবেদন শুন
গুরুদেব! বড় কৃপা করি
গুরুদেব! কৃপাবিন্দু দিয়া
শ্রীমদ্ভক্তিবিনোদবিরহদশকম্ (হা হা ভক্তিবিনোদঠক্কুর)
হরি হরয়ে নমঃ কৃষ্ণ
হরি হে দয়াল মোর
হে দেব ভবন্তং বন্দে
জনম সফল তা'র
জয় গুরু-মহারাজ (শ্রীগুরু আরতি-স্তুতি)
জয় গুরু মহারাজ করুণাসাগর (শ্রীশ্রীনিতাই-চৈতন্য-আরতি)
জয় জয় গুরুদেব করুণাসাগর (শ্রীগুরু-শ্রীগৌর-শ্রীনিত্যানন্দ-আরতি)
জয় জয় গুরুদেবের (শ্রীগুরু-আরতি)
জয় জয় গোরাচাঁদের (গৌর-আরতি)
জয় রাধামাধব
জয় রাধে, জয় কৃষ্ণ
জয়রে জয়রে জয় পরমহংস
শ্রীনৃসিংহ, জয় নৃসিংহ, জয় জয় নৃসিংহ
কবে হবে বল সে দিন আমার
কবে শ্রীচৈতন্য মোরে
কে যাবি কে যাবি
কি জানি কি বলে
কিরূপে পাইব সেবা
মানস দেহ গেহ
নমো নমঃ তুলসী মহারাণি
নিতাই আমার দয়ার অবধি
নিতাই গুণমণি আমার
নিতাই পদ-কমল
মন, তুমি তীর্থে সদা রত
মানস দেহ গেহ
ময়ূর-মুকুট
পরম করুণ
রাধা ভজনে যদি
করাধাকুণ্ডতট
রাধে রাধে গোবিন্দ
রাধিকা চরণ পদ্ম
সংসার-দাবানল (শ্রীগুর্ব্বষ্টকম্)
শ্রীগৌর-মণ্ডল মাঝে
শ্রীগুরুচরণ-পদ্ম
শ্রীগুরুপরম্পরা
শ্রীহরি-বাসরে হরি
শ্রীল-রঘুনাথদাস-গোস্বামি-শোচক
শ্রীমদ্রূপগোস্বামি-প্রভুর শোচক
শ্রীকৃষ্ণচৈতন্য প্রভু জীবে
শ্রীরূপমঞ্জরী-পদ
শ্রীশ্রীষড়্­গোস্বাম্যষ্টকম্
শ্রীশ্রীদামোদরাষ্টকম্
শ্রীশ্রীমদ্­গৌরকিশোরনমস্কারদশকম্
শুদ্ধ ভকত-চরণ-রেণু
সুজনার্ব্বুদরাধিতপাদযুগং
শুনহে রসিক জন
ঠাকুর বৈষ্ণবগণ
বৈষ্ণব কে ?
বৈষ্ণব ঠাকুর দয়ার
বন্দনা
বরজ-বিপিনে যমুনা কুলে
যদি, গৌর না হ'ত
যশোদা-নন্দন কৃষ্ণ
যশোমতীনন্দন
যে আনিল প্রেমধন (বিরহ-গীতি)

দশবিধ নামাপরাধ

বৃক্ষসম ক্ষমাগুণ করবি সাধন । প্রতিহিংসা ত্যজি আন্যে করবি পালন ॥ জীবন-নির্ব্বাহে আনে উদ্বেগ না দিবে । পর-উপকারে নিজ-সুখ পাসরিবে ॥