শ্রীশ্রীপ্রপন্নজীবনামৃতম্


প্রথম সংস্করণের

প্রকাশকের নিবেদন

 

গ্রন্থই গ্রন্থকারের বাস্তব পরিচয় প্রদান করে । গৌরসঙ্কীর্ত্তনরসে বিশ্বপ্লাবনকারী গৌড়ীয়াচার্য্যভাস্কর জগদ্­গুরু নিত্যলীলাপ্রবিষ্ট ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীশ্রীমদ্ভক্তিসিদ্ধান্ত সরস্বতী গোস্বামী প্রভুপাদের অনুকম্পিত পাত্র পূজ্যপাদ পরিব্রাজকাচার্য্য ত্রিদণ্ডিস্বামী শ্রীমদ্ভক্তিরক্ষক শ্রীধর মহারাজের গুণরাশির পরিচয় প্রদান করিতে যাওয়া বাহুল্য মাত্র । তথাপি স্বামিপাদের গুণাবলীর কীর্ত্তনদ্বারা আত্মশোধন-প্রয়াস নিরর্থক হইবে না । বৈষ্ণবাচার্য্যগণের সমগ্র সাত্বতশাস্ত্রমথিত ভক্তিসিদ্ধান্তবাণী হইতে শ্রীপ্রপন্ন-জীবনামৃতের সঙ্কলন-কৌশল ও যথাযথ সন্নিবেশ-পারিপাট্য তাঁহার অপূর্ব্ব পাণ্ডিত্যপ্রতিভার পরিচয় প্রদান করে  । ইনি অপ্রাকৃত কবিকুল-মুকুটমণি শ্রীরূপ-সনাতন-শ্রীজীবাদি বৈষ্ণবাচার্য্যগণের সুদার্শনিক বিচারসমূহ সমগ্র ভারতে বিভিন্ন ভাষায় প্রচারে অদ্ভুত যোগ্যতাবিশিষ্ট  । আমাদের শ্রীগুরুপাদপদ্ম ইহার রচিত প্রথম সংস্কৃত কবিতা "শ্রীভক্তিবিনোদ-দশকম্" পাঠ করিয়া 'Happy style' বলিয়া বর্ণনীয় বিষয়ের ভাব-গাম্ভীর্য্যের ভূয়সী প্রশংসা পূর্ব্বক উত্তরকালে শ্রীচৈতন্য-সরস্বতীর বিনোদন-ভরসায় উল্লাস প্রকাশ করিয়াছিলেন  । শ্রীল প্রভুপাদ নিত্যলীলা-প্রবেশের প্রাক্কালে সুগায়কের মুখে কীর্ত্তনশ্রবণেচ্ছু না হইয়া স্বামিপাদেরই শ্রীমুখে গৌড়ীয়গণের চরমলালসাময়ী "শ্রীরূপমঞ্জরী পদ সেই মোর সম্পদ" গীতিটি শ্রবণ করিয়া তৃপ্তিলাভ করিয়াছিলেন ।

এই গ্রন্থের প্রতিপাদ্য বিষয়সমূহ গ্রন্থের প্রথম অধ্যায়ে উপক্রমামৃতে বর্ণিত হইয়াছে । বিভিন্ন শাস্ত্র হইতে উদ্ধৃত শ্লোকসমূহের অনুবাদ বহুস্থানে মহাজনগণের ভাষাই যথাযথ উদ্ধার করা হইয়াছে । শ্রীভক্তবচনামৃতের মধ্যে দুই একটি স্থানে বিষয়ানুরোধে শ্রীভগবানের উক্তিও উদ্ধৃত হইয়াছে । শ্লোকসমূহের উপরিভাগে শ্লোকের তাৎপর্য্যবর্ণনপ্রসঙ্গে গ্রন্থকার স্ব-সম্প্রদায়ের সুসিদ্ধান্তসমূহ প্রকাশদ্বারা যে অভিনব সিদ্ধান্তালোক প্রদান করিয়াছেন, তাহাতে গৌড়ীয় সিদ্ধান্তের অসমোর্দ্ধত্ব-অনুভবকারী সজ্জন পাঠকগণ পরমানন্দ অনুভব করিবেন সন্দেহ নাই । উপসংহারে গ্রন্থকার নিজ শ্রৌত-বংশ পরিচয় এবং গ্রন্থরচনার স্থান ও কাল উল্লেখ করিয়াছেন ।

শ্রীকৃষ্ণচরণে শরণাগত না হইলে জীবন নিষ্ফল এবং শরণাগতিদ্বারাই যে সর্ব্বাভীষ্টসিদ্ধি—ইহা এই গ্রন্থে বিশেষভাবে প্রদর্শিত হইয়াছে । ইহা ভক্তিরাজ্যে প্রবেশোৎসুক ব্যক্তির হৃদয়ে বিশেষ উৎসাহ প্রদানপূর্ব্বক শ্রীহরিচরণে আকর্ষণ এবং ভজনবিজ্ঞগণের চিত্তে বিমল আনন্দ ও উল্লাসের সঞ্চার করিবে । শরণাগতের ইহা শ্রেষ্ঠ সম্পৎ । শ্রীহরিভক্তিই ইহজগতে একমাত্র সারাৎসার বস্তু । শরণাগতিদ্বারাই তাহা সুলভ্য । সুতরাং পরমানন্দস্বরূপ শ্রীহরিপাদপদ্ম লাভ করিবার আকাঙ্ক্ষা বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে শ্রীপ্রপন্ন-জীবনামৃত দেশবাসীর গৃহে গৃহে বিরাজ করিতে থাকুন । "ঘৃষ্টং ঘৃষ্টং পুনরপি পুনশ্চন্দনং চারুগন্ধং" বিচারে এই গ্রন্থের আলোচনা দ্বারা সৎসিদ্ধান্তামোদী সজ্জনগণ ইহার ভাব-সৌরভ লাভ করিয়া পরমানন্দ অনুভব করিবেন আশা করি । নির্ম্মৎসর সুধীসমাজে এই গ্রন্থ সমাদৃত হইলে ধন্য হইব ।

শ্রীধাম নবদ্বীপ
শ্রীল প্রভুপাদের বিরহবাসর
বঙ্গাব্দ ১৩৫০, গৌরাব্দ ৪৫৭

শ্রীবৈষ্ণবদাসানুদাস
শ্রীনৃসিংহানন্দ ব্রহ্মচারী

 

 

← গ্রন্থাগারে ফিরে নিবেদন →

 

সূচিপত্র:
প্রকাশকের নিবেদন
নিবেদন
১ উপক্রমামৃতম্
২ শ্রীশাস্ত্রবচনামৃতম্
শ্রীভক্তবচনামৃতম্—
৩ আনুকূল্যস্য সঙ্কল্পঃ
৪ প্রাতিকূল্য-বিবর্জ্জনম্
৫ রক্ষিষ্যতীতি বিশ্বাসঃ
৬ গোপ্তৃত্বে-বরণম্
৭ আত্মনিক্ষেপঃ
৮ কার্পণ্যম্
৯ শ্রীশ্রীভগবদ্বচনামৃতম্
১০ অবশেষামৃতম্
গ্রন্থকারের রচিত কতিপয় স্তব-রত্ন
শ্রীশ্রীপ্রভুপাদপদ্ম-স্তবকঃ
শ্রীমদ্ভক্তিবিনোদবিরহদশকম্
শ্রীশ্রীমদ্­গৌরকিশোরনমস্কারদশকম্
শ্রীশ্রীদয়িতদাসদশকম্
শ্রীমদ্রূপপদরজঃ-প্রার্থনা-দশকম্
শ্রীদয়িত-দাস-প্রণতি-পঞ্চকম্
প্রণতি-দশকম্
শ্রীগুরু আরতি-স্তুতি
প্রণাম-মন্ত্রম্

বৃক্ষসম ক্ষমাগুণ করবি সাধন । প্রতিহিংসা ত্যজি আন্যে করবি পালন ॥ জীবন-নির্ব্বাহে আনে উদ্বেগ না দিবে । পর-উপকারে নিজ-সুখ পাসরিবে ॥