শ্রীশ্রীপ্রেমবিবর্ত্ত


৪। গৌরস্য গুরুতা

 

গৌরের নৃত্য, নিত্য

ভাইরে ভজ মোর প্রাণের গৌরাঙ্গ ।

গৌর বিনা বৃথা সব জীবনের রঙ্গ ॥১॥

নবদ্বীপ-মায়াপুরে শচীর অঙ্গনে ।

গৌর নাচে নিত্য নিতাই-অদ্বৈতের সনে ॥২॥

শ্রীবাস-অঙ্গনে নাচে গায় রসভরে ।

যে দেখিল একবার আর না পাশরে ॥৩॥

আমার হৃদয়ে নাট অঙ্কিত হইয়া ।

নিরন্তর আছে মোর প্রাণ কাঁদাইয়া ॥৪॥

জগন্নাথ-মন্দিরেতে নৃত্য দেখি যবে ।

অনন্ত ভাবের ঢেউ মনে উঠে তবে ॥৫॥

আর কি দেখিব প্রভুর জাহ্নবীপুলিনে ।

সুনৃত্য-কীর্ত্তনলীলা এ ছার জীবনে ॥৬॥

সর্ব্বদেবদেবী শ্রীগৌরাঙ্গের দাস

নিষ্ঠা করি’ ভজ ভাই গৌরাঙ্গচরণ ।

অন্য দেব-দেবী কভু না কর ভজন ॥৭॥

গৌরাঙ্গের দাস বলি’ সর্ব্বদেবে জান ।

কৃষ্ণ হৈতে গৌরকে কভু না জানিবে আন ॥৮॥

নিজ গুরুদেবে জান গৌরকৃপাপাত্র ।

গৌরাঙ্গ-পার্ষদে জান গৌরদেহগাত্র ॥৯॥

গৌর-বৈরী রসপোষ্টা এই মাত্র জান ।

সকলে গৌরাঙ্গ-দাস এ কথাটী মান ॥১০॥

গৌরভজননিষ্ঠা

পরনিন্দা পরচর্চ্চা না কর কখন ।

দৃঢ়ভাবে একান্তে ভজ শ্রীগৌরচরণ ॥১১॥

গৌর যে শিখাল নাম সেই নাম গাও ।

অন্য সব নামমাহাত্ম্য সেই নামে পাও ॥১২॥

গৌর বিনা গুরু নাই এ ভব-সংসারে ।

সরল গৌরাঙ্গভক্তি শিখাও সবারে ॥১৩॥

কুটীনাটী ছাড়, মন করহ সরল ।

গৌর-ভজা লোকরক্ষা একত্রে নিষ্ফল ॥১৪॥

হয় গোরা ভজ, নয় লোক ভজ ভাই ।

একপাত্রে দুই কভু না রহে এক ঠাঞি ॥১৫॥

জগাই বলে, “যদি একনিষ্ঠ না হইবে ।

দুই নায়ে নদী-পারের দুর্দ্দশা লভিবে” ॥১৬॥

 


 

← ৩। প্রথম প্রণাম ৫। বিবর্ত্তবিলাসসেবা →

 

সূচীপত্র:
১। মঙ্গলাচরণ
২। গ্রন্থরচনা
৩। প্রথম প্রণাম
৪। গৌরস্য গুরুতা
৫। বিবর্ত্তবিলাসসেবা
৬। জীব-গতি
৭। সকলের পক্ষে নাম
৮। কুটীনাটি ছাড়
৯। যুক্তবৈরাগ্য
১০। জাতিকুল
১১। নবদ্বীপ-দীপক
১২। বৈষ্ণব-মহিমা
১৩। শ্রীগৌরদর্শনের ব্যাকুলতা
১৪। বিপরীত বিবর্ত্ত
১৫। শ্রীনবদ্বীপে পূর্ব্বাহ্ণ-লীলা
১৬। পীরিতি কিরূপ ?
১৭। ভক্তভেদে আচারভেদ
১৮। শ্রীএকাদশী
১৯। নামরহস্যপটল
২০। নাম-মহিমা
বৃক্ষসম ক্ষমাগুণ করবি সাধন । প্রতিহিংসা ত্যজি আন্যে করবি পালন ॥ জীবন-নির্ব্বাহে আনে উদ্বেগ না দিবে । পর-উপকারে নিজ-সুখ পাসরিবে ॥