শ্রীশ্রীপ্রেমবিবর্ত্ত


১৩। শ্রীগৌরদর্শনের ব্যাকুলতা

 

গৌরাঙ্গ তোমারচরণ ছাড়িয়া

চলিনু শ্রীবৃন্দাবনে ।

পূর্ব্ব-লীলা তবদেখিব বলিয়া

হইল আমার মনে ॥১॥
 
কেন সেই ভাবহইল আমার

এখন কাঁদিয়া মরি ।

তোমারে না দেখি’প্রাণ ছাড়ি’ যায় 

না জানি এবে কি করি ॥২॥
 
ও রাঙ্গা চরণমম প্রাণ ধন

সমুদ্রবালিতে রাখি’ ।

কি দেখিতে আইনুনিজ মাথা খাইনু 

উড়ু উড়ু প্রাণপাখী ॥৩॥
 
যত চলি’ যাইমন নাহি চলে

তবু যাই জেদ করি’ ।

প্রেমের বিবর্ত্তআমারে নাচায়

না বুঝিয়া আমি মরি ॥৪॥
 
গৌরাঙ্গের রঙ্গবুঝিতে নারিনু

পড়িনু দুঃখ-সাগরে ।

আমি চাই যাহানাহি পাই তাহা

মন যে কেমন করে ॥৫॥
 
গৌরাঙ্গের তরেপ্রাণ দিতে যাই

না হয় মরণ তবু ।

মরিব বলিয়াপড়িয়া সমুদ্রে

খাই মাত্র হাবুডুবু ॥৬॥
 
সে চন্দ্রবদনদেখিবার লোভে

শীঘ্র উঠি সিন্ধুতটে ।

পুনঃ নাহি দেখি’প্রাণ উড়ি’ যায়

চলি পুনঃ টোটাবাটে ॥৭॥
 
গোপীনাথাঙ্গনেদেখি’ গোরামুখ

পড়ি অচেতন হঞা ।

পণ্ডিত গোঁসাঞিমোরে লঞা রাখে

দেখি পুনঃ সংজ্ঞা পাঞা ॥৮॥
 
গৌর গদাধরবসিয়া দুজনে

বলেন আমার কথা ।

অমনি কাঁদিয়াযাই গড়াগড়ি

না বিচারি যথা তথা ॥৯॥
 
ক্ষণেক বিরহসহিতে না পারি

গৌর মোর হৃদে নাচে ।

মরিতে না দেয়বাঁচিলে কোন্দল

কিসে মোর প্রাণ বাঁচে ॥১০॥
 
হেন অবস্থায়গৌরপদ ছাড়ি’

মোর বৃন্দাবনে আসা ।

এ বুদ্ধি হইলকেন নাহি জানি

ইহ-পরলোক-নাশা ॥১১॥
 
আজ্ঞা লইনু যাইতেআজ্ঞা না পালিলে

তাতে হয় অপরাধ ।

গোরাচাঁদমুখনা দেখিয়া মরি 

সব দিকে মোর বাধ ॥১২॥
 
গোরাপ্রেম যারসঙ্কট তাহার

প্রাণ লঞা টানাটানি ।

গদাধরগণেএই ত’ দুর্দ্দশা

সবে করে কাণাকাণি ॥১৩॥
 

 


 

← ১২। বৈষ্ণব-মহিমা ১৪। বিপরীত বিবর্ত্ত →

 

সূচীপত্র:
১। মঙ্গলাচরণ
২। গ্রন্থরচনা
৩। প্রথম প্রণাম
৪। গৌরস্য গুরুতা
৫। বিবর্ত্তবিলাসসেবা
৬। জীব-গতি
৭। সকলের পক্ষে নাম
৮। কুটীনাটি ছাড়
৯। যুক্তবৈরাগ্য
১০। জাতিকুল
১১। নবদ্বীপ-দীপক
১২। বৈষ্ণব-মহিমা
১৩। শ্রীগৌরদর্শনের ব্যাকুলতা
১৪। বিপরীত বিবর্ত্ত
১৫। শ্রীনবদ্বীপে পূর্ব্বাহ্ণ-লীলা
১৬। পীরিতি কিরূপ ?
১৭। ভক্তভেদে আচারভেদ
১৮। শ্রীএকাদশী
১৯। নামরহস্যপটল
২০। নাম-মহিমা
বৃক্ষসম ক্ষমাগুণ করবি সাধন । প্রতিহিংসা ত্যজি আন্যে করবি পালন ॥ জীবন-নির্ব্বাহে আনে উদ্বেগ না দিবে । পর-উপকারে নিজ-সুখ পাসরিবে ॥