শ্রীমদ্ভগবদ্গীতা


প্রকাশকের নিবেদন

 

     শ্রীমদ্ভগবদ্গীতা-গ্রন্থের প্রকাশ-প্রাচুর্য্য ও প্রসারতা অনন্যসাধারণ । বহু প্রাচীনমহাজন ও আধুনিক মনীষিবৃন্দের নিজ নিজ ব্যাখ্যাসহ এই জনপ্রিয় গ্রন্থের ব্যাপক প্রকাশ দেশে ও বিদেশে বিভিন্ন ভাষায় পরিদৃষ্ট হয় । প্রাচীন পণ্ডিতগণের মধ্যে প্রধানতঃ জ্ঞানিগুরু শ্রীমৎ শঙ্করাচার্য্য এবং শ্রীমধুসূদন সরস্বতী, বৈষ্ণবাচার্য্য শ্রীমৎ রামানুজ, শ্রীমন্মধ্বমুনি ও শ্রীশ্রীধর স্বামিপাদ প্রভৃতি মহাজনগণের গীতাভাষ্য বিশেষ উল্লেখযোগ্য । কর্ম্মযোগ পক্ষপাতী শ্রীযুত বাল-গঙ্গাধর তিলক ও শ্রীঅরবিন্দের কৃত গীতা ব্যাখ্যাও আধুনিক মনীষার পরিচিত নিদর্শন । ইহা ব্যতীত বহু প্রাচ্য ও পাশ্চাত্ত্য মনীষিগণ শ্রীগীতার শিক্ষা আদর্শে অনুপ্রাণিত ও উচ্চ প্রশংসায় সহস্রমুখ । কিন্তু শ্রীচৈতন্যানুগ গৌড়ীয়াচার্য্য শ্রীল বিশ্বনাথ ও শ্রীল বলদেব বিদ্যাভূষণ মহোদয়-প্রকাশিত অচিন্ত্য-ভেদাভেদ-সিদ্ধান্ত ঐকান্তিকী ভক্তির বিশেষ অনুকূল বলিয়া সুমেধগণ অনুভব করেন এবং শ্রীল ভক্তিবিনোদ ঠক্কুর কৃত গীতার বাংলা ব্যাখ্যা, পঞ্চমপুরুষার্থ শ্রীকৃষ্ণপ্রেম সম্পদের পরম সামঞ্জস্যপূর্ণ আকর পীঠস্বরূপে সুধীজন হৃদয়ঙ্গম করিয়া থাকেন ।
    বর্ত্তমান সংস্করণের ‘গ্রন্থ পরিচয়ে’ মদীয় পরমারাধ্যতম শ্রীগুরুপাদপদ্ম ওঁ বিষ্ণুপাদ পরমহংস পরিব্রাজকাচার্য্য শ্রীশ্রীমদ্ভক্তিরক্ষক শ্রীধর দেব-গোস্বামী মহারাজ তাঁহার সম্পাদন পরিচয়ে নিজ শ্রদ্ধানুভূতির বিষয় সুস্পষ্টভাবেই পাঠকবর্গকে অবগত করাইয়াছেন । অধুনা শ্রীগীতার বহুল প্রচারিত সংস্করণ সমূহের মধ্যেও প্রকৃত শ্রৌতসিদ্ধান্ত-ধারাগত শুদ্ধভক্তি-সহায়ক ব্যাখ্যা সুদুষ্প্রাপ্য বিধায় আমাদের এই সেবোদ্যম । সুধী পাঠকবর্গ আমাদের এই হার্দ্দীচেষ্টার কল্যাণময় মর্ম্ম হৃদয়ঙ্গম করিলে আমরা ধন্য বোধ করিব । ইতি—

প্রকাশক
শ্রীভক্তিসুন্দর গোবিন্দ

 

 

 

—()—

 

 

 

← মঙ্গলাচরণম্ গ্রন্থ-পরিচয় →

 

সূচিপত্র:
মঙ্গলাচরণম্
গ্রন্থ-পরিচয়
প্রকাশকের নিবেদন
১ সৈন্য-দর্শন
২ সাংখ্যযোগ
৩ কর্ম্মযোগ
৪ জ্ঞানযোগ
৫ কর্ম্মসন্ন্যাসযোগ
৬ ধ্যানযোগ
৭ জ্ঞানবিজ্ঞানযোগ
৮ তারকব্রহ্মযোগ
৯ রাজগুহ্যযোগ
১০ বিভূতিযোগ
১১ বিশ্বরূপ-দর্শনযোগ
১২ ভক্তিযোগ
১৩ প্রকৃতিপুরুষ-বিবেক-যোগ
১৪ গুণত্রয়-বিভাগ-যোগ
১৫ পুরুষোত্তমযোগ
১৬ দৈবাসুরসম্পদ্-বিভাগ যোগ
১৭ শ্রদ্ধাত্রয়-বিভাগ-যোগ
১৮ মোক্ষযোগ
গীতামাহাত্ম্যম্
বৃক্ষসম ক্ষমাগুণ করবি সাধন । প্রতিহিংসা ত্যজি আন্যে করবি পালন ॥ জীবন-নির্ব্বাহে আনে উদ্বেগ না দিবে । পর-উপকারে নিজ-সুখ পাসরিবে ॥