আমাদের শ্রীগুরুপরম্পরা :
শ্রীশ্রীল ভক্তিনির্ম্মল আচার্য্য মহারাজ শ্রীশ্রীল ভক্তিসুন্দর গোবিন্দ দেবগোস্বামী মহারাজ শ্রীশ্রীল ভক্তিরক্ষক শ্রীধর দেবগোস্বামী মহারাজ ভগবান্ শ্রীশ্রীল ভক্তি সিদ্ধান্ত সরস্বতী গোস্বামী ঠাকুর
              প্রভুপাদ
“শ্রীচৈতন্য-সারস্বত মঠে সূর্যাস্ত কখনই হয় না” :
আমাদের মঠের পরিচয় ও বৈশিষ্ট্য
 
আমাদের সম্পর্কে শ্রীউপদেশ শ্রীগ্রন্থাগার শ্রীগৌড়ীয় পঞ্জিকা ছবি প্রণামী ENGLISH
 

শ্রীচৈতন্য-সারস্বত মঠের বই ও প্রবন্ধ

"আপনারা সব সময় ভগবৎ-কীর্তন, ভগবৎ-কথা শ্রবণ-কীর্তন করবেন । আমরা গুরুদেবকে কোথায় পাব ? গুরুদেব ত’ চলে গিয়েছেন । তবু আমরা গুরুদেবের গ্রন্থ পড়ে গুরুদেবের সঙ্গ লাভ করতে পারি । আমি যখন এখান থেকে চলে যাব, আপনারা কোথায় সঙ্গ লাভ করবেন ? আমার গ্রন্থগুলো আছে—এই গ্রন্থগুলো পড়ে প্রত্যেক দিন গুরুদেবকে দর্শন করতে পারবেন এবং গুরুদেবের সঙ্গ লাভ করতে পারবেন ।"

“যে আমাদের গুরুদেব সমস্ত পৃথিবীতে বলে দিয়েছেন, যে তিনি আমাদের জন্য রেখে দিয়েছেন (তাঁর বইগুলো, তাঁর অডিও- ও ভিডিও-বক্তৃতাগুলো), সেটাকে আমাদের অপরকে বিতরণ করতে হবে । যে আমরা বানান বা আবিষ্কার করি, সেটাকে বিতরণ করা উচিৎ নয় । যে গুরুদেব বানান বা আবিষ্কার করেছেন, সেটাকে বিতরণ করুন—সেটাই যথেষ্ট, সেটা করলে জগতের জীবগুল মঙ্গল লাভ করতে পারে ।”

“আমাদের এতগুলো বই আছে কিন্তু আমরা পড়ি না । আমরা বইগুলো ছাপিয়েছি পেপার প্লেট বা চানাচুর-সিঙ্গারার ঠোঙার জন্য নয় ! যখন সময় পান, ওই বইগুলো পড়ুন । সেটা খুব গুরুত্বপূর্ণ ।”

“আমরা বড় বা ঐশ্বর্যবান হতে চাই না, আমরা অনুকরণকারী হতে চাই না—আমরা আসল জিনিস চাই । সেইজন্য আপনাদের ধারণাটা বুঝতে হবে । শ্রীলশ্রীধর মহারাজ ও শ্রীলগুরুদেবের বইগুলো পড়তে হবে, তাহলে আপনারা কিছু বুঝতে পারবেন । আমি অনেক সময় বলেছি—যখন সময় পান, পড়ুন । গ্রান্থ পড়তে পড়তে আসল ধারণাটা কী সেটা বুঝতে চেষ্টা করুন ।”

“শ্রীলশ্রীধর মহারাজ ও শ্রীলগুরুদেবের অনেক বইগুলো আছে—আমাদের শিক্ষা বা ধারণাটা তাদের মধে রাখা হয় । তাই আপনাদের আসল খাদ্যটা আছে ।”

“গুরু সব সময় আমাদের পাশেই থাকেন, তিনি আমাদের সব সময় উপদেশ দেন । তাঁর উপদেশ, তাঁর কথা স্মরণ করলে, তাঁর বইগুলো পড়লে, তা দ্বারা আমরা সব সময় তাঁর সঙ্গ লাভ করতে পারি । আপনারা সেতা সহজে বুঝতে পারেন ।”

“যখন সময় পান, গুরুদেবের বইগুলো পড়ুন । যদি ভাবেন, 'বই পড়ে কোন রুচি পাই না' তাহলে বুঝতে পারেন যে, ভিতরে আপনাদের হৃদয়ের মধ্যে অপরাধের বীজ রয়েছে ।”

(ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীল ভক্তিনির্ম্মল আচার্য্য মহারাজের মুখনিঃসৃত হরিকথামৃত বাণী)

 

ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীলভক্তিনির্ম্মল আচার্য্য মহারাজ শ্রীশ্রীমদ্ভক্তিসুন্দর গোবিন্দ দেবগোস্বামী মহারাজ শ্রীশ্রীমদ্ভক্তিরক্ষক শ্রীধর দেবগোস্বামী মহারাজ
  
ভগবান্ শ্রীশ্রীমদ্ভক্তিসিদ্ধান্ত সরস্বতী ঠাকুর প্রভুপাদ শ্রীল সচ্চিদানন্দ ভক্তিবিনোদ ঠাকুর মহাশয় অন্যান্য গ্রন্থপ্রকাশ

 


 

শ্রীগুরুপাদপদ্মের শেষ-কথা (ওঁ বিষ্ণুপাদ শ্রীল ভক্তি নির্ম্মল আচার্য্য মহারাজের হরি-কথামৃত)
[২ মে ২০২১] "এটা যুদ্ধক্ষেত্র । আমরা যুদ্ধক্ষেত্র থেকে কখনও পালিয়ে যাব না—আমরা দাঁড়িয়ে থাকব আর মায়ার বিরুদ্ধে যুদ্ধ করব । সর্বত্রই দেখতে পাবেন যে, অসুররা সব সময় সাধুর দ্বারা পরাজিত হন । যেদিকে সাধু, সেইদিকে সব সময় ওঁ থাকে । দয়া করে নিজেদের দেখাশোনা করুন । এই অবস্থায় সকলের নিজেই সাধন করতে হয়, নিরুৎসাহিত হন না ।"

 

 

 

 

ফিরে

বাংলা গ্রন্থ
ইংরেজি ভাষায়
স্পেনীয় ভাষায়
রাশিয়ান ভাষায়

 


 

গ্রন্থকার:

শ্রীলভক্তিনির্ম্মল আচার্য্য মহারাজ

শ্রীলভক্তিসুন্দর গোবিন্দ দেব-গোস্বামী মহারাজ

শ্রীলভক্তিরক্ষক শ্রীধর দেব-গোস্বামী মহারাজ

শ্রীশ্রীল ভক্তিসিদ্ধান্ত সরস্বতী গোস্বামী ঠাকুর প্রভুপাদ

শ্রীলসচ্চিদানন্দ ভক্তিবিনোদ ঠাকুর

অন্যান্য গ্রন্থপ্রকাশ:

শ্রীগৌড়ীয়-গীতাঞ্জলি

বিবিধ গ্রন্থবলী ও প্রবন্ধ

শ্রীচৈতন্য মহাপ্রভুর মূল শিক্ষা

আমাদের শ্রীগুরুপরম্পরার সম্পর্কে

 


 

কাঙ্গালী ভোজন কবে হ’বে ?
'তুই কিসের কাঙ্গাল ; কি তোর অভাব ; কি চা’স্ ? হায়, হায়,—তুই যে তোর এই জড় ইন্দ্রিয়গুলিকেই কেবল পরিতৃপ্ত কর্ত্তে চাস্ ; তাদের দুষ্ট ক্ষুধায় ইচ্ছামত ভোগ-সুখেরই অভাব অনুভব করিস্ ; আর, তাহা যথেষ্টরূপ যোগাইতে না পারিয়া তাহারই তরে আপনাকে কাঙ্গাল ভাবিস্ ! আয় মন, আয়, যাদি শ্রেয়ঃ লাভ করিবি,—আয়,—ভোজনের কাঙ্গাল হইয়া নয়, ভজনের কাঙ্গাল হইয়া আয়, আর পরমপাবন ভাগবত-জনের চরণে লুঠিয়া মাথায় তুলিয়া নে ।'

      

 

 

বৃক্ষসম ক্ষমাগুণ করবি সাধন । প্রতিহিংসা ত্যজি আন্যে করবি পালন ॥ জীবন-নির্ব্বাহে আনে উদ্বেগ না দিবে । পর-উপকারে নিজ-সুখ পাসরিবে ॥